,
আপডেট

জেনে নিন নিমের তেলের অসাধারণ ৮টি গুণ সম্পর্কে

বহু প্রাচীনকাল থেকেই আয়ুর্বেদিক ঔষধে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে নিমের তেল। বিভিন্ন ধরণের সংক্রমণ এবং ত্বকের সমস্যা নিরাময়ে প্রাকৃতিক নিরাময় হিসেবে কাজ করে নিমের তেল। অনেকেই নিমের তেলের ঘ্রাণ পছন্দ করেন না, কিন্তু নিমের তেলের চমৎকার গুণের কথা জানলে তারাও একে পছন্দ করা শুরু করবেন। চলুন তাহলে জেনে নিই নিমের তেলের চমৎকার গুনাগুণের বিষয়ে।

১। ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে

ত্বকে নিমের তেলের ব্যবহার ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। নিমের তেলে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে বলে ব্রণ দূর হতে সাহায্য করে। ব্রণ দূর করার জন্য কয়েকফোঁটা নিমের তেলের সাথে কয়েকফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে নিন। উভয় তেলের মিশ্রণটি মুখের ত্বকে ব্যবহার করুন। সরাসরি নিমের তেল ত্বকে ব্যবহার করবেন না।

২। খুশকি নিরাময় করে

খুশকির সমস্যা দূর করতে নিমের ব্যবহার হয়ে আসছে প্রাচীনকাল থেকেই। সাধারণত ছত্রাকের সংক্রমণের কারণেই হয়ে থাকে খুশকি যা নিমের তেলের দ্বারা পুরোপুরি ভালো করা যায়। খুশকিসহমাথার তালুর অন্যান্য সংক্রমণ দূর করতেও উপকারী নিমের তেল। এজন্য আপনার শ্যাম্পুর সাথে নিমের তেল মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

৩। অ্যাথলিট’স ফুট নিরাময়ে সাহায্য করে

অস্বাস্থ্যকর অবস্থার জন্যই অ্যাথলিট’স ফুটের মত ছত্রাকজনিত সমস্যা হয়। অ্যাথলিট’স ফুট খুবই ব্যথাযুক্ত সমস্যা, কারণ এতে পায়ে প্রদাহের সৃষ্টি হয়। এই সমস্যাটির সমাধানের জন্য নিমের তেল   ব্যবহার করুন। নিমের তেলের সাথে নারিকেলের তেল মিশিয়ে আক্রান্ত স্থানে ব্যবহার করুন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

৪। ত্বকের উন্মুক্ত রোমকূপগুলোকে কমাতে সাহায্য করে

ত্বকের উন্মুক্ত রোমকূপের সমস্যা নিরাময়ে নিমের তেল চমৎকারভাবে কাজ করে। নিমের তেলের প্রদাহরোধী এবং ব্যাকটেরিয়ারোধী উপাদানের কারণেই ত্বকের উন্মুক্ত রোমকূপগুলোকে বন্ধ হতে সাহায্য করে। মুখের ত্বকের বড় রোমকূপের সমস্যা নিরাময়ের জন্য নিমের তেলের সাথে নারিকেলের তেল মিশিয়ে নিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন।

৫। একজিমা নিরাময় করে

একজিমা ত্বকের সাধারণ প্রদাহজনিত একটি সমস্যা। নিমের তেলের প্রদাহরোধী ও বেদনানাশক গুণের কারণে একজিমা নিরাময়ে সাহায্য করে। আক্রান্ত স্থানে নিমের তেল ব্যবহার করলে একজিমার ব্যথা কমে। কুসুম গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা নিমের তেল মিশিয়ে নিন। এই পানি দিয়ে গোসল করুন প্রতিদিন।

৬। মশা দূর করে

নিম প্রাকৃতিক ও শক্তিশালী মশা নিরোধক হিসেবে কাজ করে। এক কাপের চার ভাগের একভাগ পরিমাণ নারিকেল তেলের সাথে ১০-১৫ ফোঁটা নিমের তেল মিশিয়ে নিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন এতে মশার কামড় থেকে রক্ষা পাবেন।

৭। ত্বকের শুষ্কতা দূর করে

নিমের তেল ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা দূর হয়। নিমের তেল ত্বককে আর্দ্র হতে সাহায্য করে। নিমের তেলের সাথে নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে ত্বকে ম্যাসাজ করুন। এটি নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের শুষ্কতা দূর হবে।

৮। হাইপারপিগমেন্টেশন নিরাময় করে

ত্বকের হাইপারপিগমেন্টেশন এর সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য করে নিমের তেল। এটি ত্বকের মেলানিনের উৎপাদনকে ধীর হতে সাহায্য করে। নিম তেল ও নারিকেল তেলের মিশ্রণ মুখের ত্বকে ও শরীরে ম্যাসাজ করুন কয়েক মিনিট যাবৎ।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply