শ্বাসতন্ত্রের জটিল রোগ সিওপিডি সম্পর্কে জানুন সচেতন থাকুন | হেলথ বার্তা
,
শিরোনাম

শ্বাসতন্ত্রের জটিল রোগ সিওপিডি সম্পর্কে জানুন সচেতন থাকুন

সিওপিডি শ্বাসতন্ত্রের জটিল রোগ। এ বিষয়ে কথা বলেছেন অধ্যাপক ইকবাল হাসান মাহমুদ। বর্তমানে তিনি ইউনাইটেড হাসপাতালের বক্ষব্যাধি বিভাগের পরামর্শক হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন : সিওপিডি বিষয়টি কী?

উত্তর : সিওপিডি মানে হলো ক্রনিক অবসট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ। আমরা আগে ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস এবং এমফাইসিমা আলাদা করে বলতাম। এখন দুটোকে মিলিয়ে আমরা বলি সিওপিডি। মানে ক্রনিক অবসট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ। এটা সারা বিশ্বে একটি আতঙ্কের বিষয় হয়ে গেছে।

১৯৯০ সালের হিসাবমতে, মৃত্যুহারের ষষ্ঠতম কারণ এই সিওপিডি। আশঙ্কা করা যাচ্ছে, ২০২০ সাল নাগাদ এর অবস্থান তৃতীয়তে এসে দাঁড়াবে। মানে ভয়ংকর আকারে সিওপিডিতে আক্রান্ত হচ্ছে রোগীরা।


প্রশ্ন : ক্রনিক অবসট্রাকটিভ শুনলেই মনে হয় কোথাও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে বিষয়টি। এটি আসলে কোথায় বাধাগ্রস্ত হয়?

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

উত্তর : সিওপিডির একজন রোগী শ্বাস নিতে পারছে, তবে ফেলতে পারছে না। এই যে ফেলার সময় একটি বাধা এবং এটি কিছুতেই আগের অবস্থানে ফিরে আসে না। যখন একজন হাঁপানি রোগীকে আমরা চিকিৎসা দিই, সে কিন্তু সুস্থ হয়ে যায় এবং আগের অবস্থানে ফিরে আসে।

সুন্দরভাবে শ্বাস নিতে পারছে, শ্বাস ফেলতেও পারছে। কিন্তু একজন সিওপিডি রোগী, সে শ্বাস নিতে পারছে, তবে ফেলতে পারছে না। এটিই হচ্ছে এই রোগ।

এর কিছু কারণ রয়েছে। ধূমপান হচ্ছে সবচেয়ে বড় কারণ। আরো নতুন নতুন তথ্য, যেগুলো আসছে সলিড ফুয়েল। অর্থাৎ আমাদের গ্রামবাংলার মায়েরা, যাঁরা লাকড়ির চুলায় রান্না করেন, বছরের পর বছর সেই ধোঁয়াগুলো নাকে গিয়ে মা-বোনরা সিওপিডিতে আক্রান্ত হন। এ ছাড়া পরিবেশদূষণ একটি বড় কারণ।

পরিবেশের বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক যেসব উপাদান আমাদের নাক দিয়ে ঢুকছে, কার্বন ডাইঅক্সাইড বলুন, কার্বন মনোক্সাইড বলুন, সালফার ডাইঅক্সাইড বলুন, অনেক ধরনের এগুলো ঢুকে কিন্তু সিওপিডি তৈরি হচ্ছে। সিওপিডি এমন একটি রোগ, যেখানে ফুসফুসের যে গঠনগত বিষয় রয়েছে, সেটা পুরোটাই ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে।

অর্থাৎ ছোট ছোট যে সূক্ষ্মাতিসূক্ষ্ম শ্বাসনালি রয়েছে, যাকে বলে টারমিনাল ব্রঙ্কিও—তার সঙ্গেই আছে এলবিউলার স্যাক বা বায়ুথলি, সেগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এই নষ্ট হয়ে যাওয়ার জন্য ফুসফুসের গঠনটাই শেষ হয়ে যাচ্ছে। এ জন্য আমি বলেছি যে আগের অবস্থায় আর ফিরে যায় না। যতখানি ক্ষতি হওয়ার হয়ে গেছে।

কৃতজ্ঞতাঃ  এনটিভি 

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে