,
আপডেট

কমিয়ে ফেলুন রাত্রিকালীন বুকজ্বালা

অনেকেই রাত্রিকালীন বুকজ্বালায় ভোগেন  এবং তাতে তাদের ঘুমের ব্যাঘাত হয়। এই ভোগান্তির জন্য ভূক্তভোগী ব্যক্তির দায় বড় কম নয়। কারণ অনেকের অভ্যাস আছে রাতে ভুরিভোজ করা এবং রাতের খাবার খেয়েই শুয়ে পড়া।

এই অভ্যাস যে বিপর্যয় ডেকে আনে তা তারা ভাবেন না বা জানেন না। আর সেজন্যই রাতের বেলা বুকজ্বালার ঘনটা বেশি ঘটে।রাতের খাবার খাওয়ার পর শুয়ে পড়লে, শায়িত অবস্থায় খাদ্যনালী পাকস্থলীর এসিডের উদিগরণ ভালভাবে করতে পারে না।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

অন্যদিকে, আপনার ঘুমন্ত অবস্থায় দেহের লালা উত্পাদন বন্ধ থাকে। লালা আপনার ঘুমন্ত অবস্থায় এসিডের বিরুদ্ধে লড়াই করে। সুতরাং এসব প্রতিকারযোগ্য সমস্যা থেকে উত্তরণ এবং শরীরস্বাস্থ্য ভাল রাখতে চাইলে খাওয়ার অব্যবহিত পরে ঘুমিয়ে পড়ার আলস্য বা অভ্যাস পরিহার করুন।

আপনার শয়ন সময়ের কয়েক ঘন্টা আগে রাতের খাওয়া শেষ করুন; পরিমাণে অল্প খান এবং মাথাটা যাতে বিছানা থেকে চার থেকে ছয় ইঞ্চি ওপরে থাকে তেমন বালিস ব্যবহার করুন।

বাম দিকে কাত হয়ে শুলেও উপকার পেতে পারেন। মার্কিনরা বিকেল ৬টার পর থেকেই রাতের খাবার খাওয়া শুরু করে। কারণ এখানে রাত ৯টা অবধি দিনের আলো থাকে।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply