,
আপডেট

যে খাবারগুলো আপনার বিষণ্ণতার জন্য দায়ী

কিছু ধরণের খাবার রয়েছে যা মন ভালো করে দিতে পারে। কারণ সে খাবারগুলো খেলে মস্তিষ্কে ভালোলাগার হরমোন উৎপন্ন হয় এবং এগুলো গবেষণায় প্রমাণিত। কিন্তু আপনি কি জানেন, খাবার এবং খাদ্যাভ্যাস আপনার মন খারাপের জন্যও দায়ী থাকে।

শুনতে অবাক হলেও সত্যি যে কিছু খাবারের যেমন মন ভালো করার পেছনে হাত রয়েছে তেমনই কিছু খাবারের রয়েছে মন খারাপ করে দেয়া অর্থাৎ বিষণ্ণ করার ক্ষমতা। জানতে চান কোন খাবারগুলো আপনার বিষণ্ণতা রোগের জন্য দায়ী? চলুন তবে জেনে নেয়া যাক।

১) রিফাইন্ড চিনি –

রিফাইন্ড চিনি এবং রিফাইন্ড চিনি সমৃদ্ধ খাবার আমাদের রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা হুট করে বাড়িয়ে দেয় এবং এতে করে এতে করে একধরণের ঘোরের মতো সৃষ্টি হয় যা আমাদের মনের উপরে প্রভাব ফেলে। এই প্রভাবটির কারণেই মন খারাপ হয়, আমাদের শক্তি কমে যায় এবং ঘুমের সমস্যা তৈরি হয়।

২) প্রক্রিয়াজাত খাবার –

প্রক্রিয়াজাত কার্বোহাইড্রেট যেমন পাউরুটি, সিরিয়াল, পাস্তা এবং অন্যান্য প্রক্রিয়াজাত স্ন্যাকস জাতীয় খাবার যা আমরা হরহামেশাই খেয়ে থাকি এগুলোও আমাদের রক্তের সুগারের মাত্রার উপরে প্রভাব ফেলে। হুট করে রক্তের সুগার মাত্রার উপরে প্রভাবের কারণে দুর্বলতা, খিটখিটে মেজাজ এবং মন খারাপ বা বিষণ্ণতায় পড়তে দেখা যায়।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

৩) হাইড্রোজেনেট তেলে ভাজা খাবার –

ফ্রাইড চিকেন, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই, ফ্রাইড ক্যালামারি, ফ্রাইড চীজ স্টিক ইত্যাদি ধরণের ফাস্টফুড বেশীরভাগ সময়য়েই হাইড্রোজেনেট তেলে ভাজা হয়। এতে থাকে ট্রান্স ফ্যাট যা বিষণ্ণতার জন্য বিশেষভাবে দায়ী। এছাড়াও এইধরনের খাবারের স্যচুরেটেড ফ্যাট মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহের ধমনীতে ব্লকের সৃষ্টি করে।

৪) অতিরিক্ত সোডিয়াম সমৃদ্ধ খাবার –

অতিরিক্ত সোডিয়াম সমৃদ্ধ খাবার আমাদের নিউরোলজিক্যাল সিস্টেমের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে যা বিষণ্ণতার জন্য দায়ী। এছাড়াও একই কারণে দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে, দুর্বলতা অনুভব হয় এবং শরীরে অতিরিক্ত পানি চলে আসার সমস্যায় পড়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

৫) ক্যাফেইন –

হেলথ এক্সপার্টদের মতে খুব সামান্য পরিমাণ ক্যাফেইনও বিষণ্ণতা রোগ এবং অল্পতেই দুশ্চিন্তা করার সমস্যায় ফেলে দিতে পারে। ক্যাফেইন আমাদের অনিদ্রার জন্য মূলত দায়ী থাকে। আর অনিদ্রার সমস্যা বেশি বেড়ে গেলে বিষণ্ণতা রোগ ভর করতে পারে।

সৌজন্যে – প্রিয়.কম
বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply