,
আপডেট

জেনে নিন ওজন কমানোর যে কৌশলগুলো আসলেই কাজ করে!

ওজন কমানোর রয়েছে শত শত টিপস। কিন্তু তার সবই কী সবার জন্য কাজ করে? বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করেও কিছুতেই ওজন কমাতে পারছেন না অনেকে। তাদের জন্যই রইলো এমন কিছু অভ্যাসের কথা, বিজ্ঞানিদের মতে যেগুলো নিঃসন্দেহে কার্যকরী।

ওজন দ্রুত কমাতে গিয়ে অনেকেই এমন সব উপায়ে ডায়েট করেন যা মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়। এই যেমন, দিন দশেক শুধুমাত্র স্মুদি খেয়ে ওজন কমানোটা আর যাই হোক স্বাস্থ্যকর হতে পারেনা। বিজ্ঞানীরা এ কারণে বাছাই করে দিয়েছেন এমন কিছু অভ্যাস, যা একই সাথে স্বাস্থ্যকর এবং ওজন কমাতে সহায়ক।

১) এমন সব খাবার খান যেগুলো আপনি পছন্দ করেন। ডায়েট করতে গেলে শুধুই শাকপাতা চিবুতে হবে ভেবে অনেকের মাঝেই অনীহা দেখা যায়। এ কারণে নিজের পছন্দের অথচ স্বাস্থ্যকর এমন কিছু খাবার রাখুন ডায়েট প্ল্যানে। এতে ওজন কমানোর কাজটাকে শাস্তি মনে হবে না।

২) খাবার খান একদম মেপে মেপে। ওজন বাড়ার পেছনে অনিয়ন্ত্রত খাওয়া অনেক বড় ভূমিকা পালন করে। তাই লক্ষ্য রাখুন আপনি অতিরিক্ত খাচ্ছেন কি না।

৩) বাসা থেকে লাঞ্চ নিয়ে বের হন। নয়তো বাইরে খেতে গিয়ে নিঃসন্দেহে অতিরিক্ত খাওয়া হয়ে যাবে।

৪) খাবারে রাখুন বেশি করে প্রোটিন এবং ফাইবার। এগুলো ক্ষুধা কম রাখে ফলে ওজন কমাতে সহায়ক।

৫) ভূমধ্যসাগরীয় খাদ্যভ্যাস ওজন কমাতে সহায়ক। তাদের মতো বেশি বেশি সবজি, অলিভ অয়েল এবং কম করে প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারেন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

৬) পানির বদলে অন্যান্য পানীয় পান করা কমান। বিভিন্ন জুস, কোমল পানীয়ের মাঝে প্রচুর চিনি থাকে যা ওজন দ্রুত বাড়িয়ে দেয়।

৭) খাবারে রাখুন বৈচিত্র্য। একই খাবার প্রতি সপ্তাহে খেতে থাকলে একঘেয়েমি এসে পড়বে। ডায়েট যারা করছেন তাদের ক্ষেত্রে এটা বেশি প্রযোজ্য। খাবারে নতুন নতুন উপাদান যোগ করুন। এতে কাজটা সহজ হয়ে আসবে।

৮) আপনার পেটে কী কী ব্যাকটেরিয়া আছে তার ওপরে অনেকটাই নির্ভর করে আপনার ওজন বাড়া-কমা। গবেষকেরা এমন এক ফর্মুলা আবিষ্কার করেছেন যাতে এই ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতির ভিত্তিতে আপনার খাদ্যভ্যাস ঠিক করা যায়।

৯) খাবার আগে পানি পান করাটা ওজন কমানোর খুব সহজ একটি ট্রিক।

১০) কেনাকাটা করতে যাবার আগে পেট ভরে খেয়ে নিন। এতে বাইরে খাওয়াদাওয়ার ইচ্ছে হবে না।

১১) ঘুমান প্রয়োজনমতো। কারণ আমরা যখন বেশি ক্লান্ত ও ঘুম-ঘুম অবস্থায় থাকি তখন শরীর বেশি ক্যালোরির খাবার চায়।

১২) সকালের ব্রেকফাস্ট বাদ দেবেন না। ব্রেকফাস্ট খেলে দ্রুতই মেটাবলিজম শুরু হয়।

১৩) ডিনারের পর অতিরিক্ত কিছু খাবেন না। এতে ক্যালোরি অনেকটা কম গ্রহণ করা হয়।

১৪) ডায়েট ড্রিঙ্ক পান করবেন না। আপনি মনে করতে পারেন এগুলোতে ক্যালোরি কম কিন্তু এগুলো পান করা অভ্যাসে দাঁড়িয়ে গেলে ওজন কমবে না, বরং বাড়বে।

১৫) ডায়েট করতে গিয়ে নিজেকে ক্ষুধার্ত করে রাখবেন না। এতে আপনি মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন।

সূত্র: 15 healthy eating habits that work according to scientists, Business Insider

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply