,
আপডেট

ডায়েট করছেন? তাহলে জেনে নিন কেন খাবেন না রেস্তরাঁর সালাদ ও জুস!

ডায়েট করার সময়ে বেশিরভাগ মানুষই বেছে নেন সালাদ ও জুস জাতীয় খাবারকে। অবশ্য এই নির্বাচন ভুল নয়। কেননা, সালাদ কিংবা জুসে সবজি ও ফলটাই হচ্ছে প্রধান আইটেম।

আর বলাই বাহুল্য যে এগুলোতে ক্যালোরি কম বিধায় অনেক খেলেও সমস্যা নেই। বাড়তি ক্যালোরি যোগ হয় না বলে ডায়েট করাটা হয়ে যায় ভীষণ সহজ ও সুস্বাদু। কিন্তু এখানে প্রশ্ন আছে! যদি বলি, এই সালাদ ও জুসটাই বাড়িয়ে দিচ্ছে আপনার ওজন?

হ্যাঁ, একদম ঠিক শুনেছেন। আপনি যদি বাজারের কেনা কিংবা রেস্তরাঁর সালাদ ও জুস খেয়ে থাকেন, তাহলে আপনার ডায়েটে হচ্ছে না বিন্দুমাত্র কোন উপকার। বরং উল্টো এগুলো আপনার ওজন বাড়াতেই ভূমিকা রাখছে বেশি, কমানো তো অনেক দূরের বিষয়। কি, বিশ্বাস হলো না? তাহলে আজ জেনে নিন কেন ডায়েট করার সময় বাইরের সালাদ ও জুস খাবেন না।

প্রচুর চিনির ব্যবহার

প্রথমেই আসি জুস প্রসঙ্গে। আপনি তো ডায়েট করছেন ওজন কমাতে, নিশ্চয়ই ছেড়ে দিয়েছে চিনি খাওয়া? প্যাকেটজাত কেনা জুস তো বটেই, রেস্তরাঁর জুসেও ব্যবহার করা হয় প্রচুর পরিমাণে চিনি। আর তাই এক গ্লাস জুসই আপনার সারা দিনের ডায়েট নষ্ট করার জন্য যথেষ্ট।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

প্রিজারভেটিভ

প্যাকেটজাত কেনা জুসে প্রচুর পরিমাণে রঙ ও প্রিজারভেটিভ থাকে। যা আপনার স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক খারাপ। এবং ডায়েট করার সময় এমন কৃত্রিম উপাদান দেয়া খাবার খেলে আসলে কোন উপকারই হয় না।

মেয়োনিজ ও সালাদ ড্রেসিং

রেস্তরাঁয় সালাদ মানেই মেয়োনিজ, সালাদ ড্রেসিং ইত্যাদি। আর এগুলোই যদি খেতে হয়, তাহলে ডায়েট করে লাভটা কি বলুন?

আছে আরও ভয়াবহ উপাদান

আরও ভয়ংকর একটি তথ্য শুনবেন? রেস্তরাঁয় মেয়োনিজ, হোয়াইট সস বা সালাদ ড্রেসিং তৈরি করতে মূলত ব্যবহার করা হয় সয়াবিন তেল, চিনি ইত্যাদি। এখন নিজেই ভাবুন, এসব উপাদান আপনার জন্য কতটা স্বাস্থ্যকর?

প্রচুর লবণ

বলাই বাহুল্য যে লবণ ওজন কমাতে মোটেও সহায়তা করে না। আর রেস্তরাঁর খাবারে প্রয়োজনের চাইতে বেশি লবণ থাকে। সালাদে তো আরও বেশি।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply