,
আপডেট

রাত জাগা ঝুঁকি বাড়ায় গর্ভধারণে

ইদানিং অনেকেই রাত জাগাটা বাড়িয়ে দিয়েছেন। ইন্টারনেট, স্মার্ট ফোন আর ফেসবুকের কল্যানে বন্ধুদের সাথে চ্যাট করে কিংবা নিউজফিড ঘেটে ঘেটে রাতের বেশিরভাগ সময়টা জেগেই কাটিয়ে দেন নারী পুরুষরা। কিন্তু আপনি কি জানেন যে নারীদের জন্য অতিরিক্ত রাত জাগার আছে ক্ষতিকর প্রভাব?

বিশেষ করে সন্তান ধারণে আগ্রহী নারীদেরকে একেবারেই রাত জাগা উচিত না। কারণ রাতে বাতি জ্বালানো থাকলে কিংবা বারে বারে বাতি জ্বালালে শরীরে ফার্টিলিটি হরমোনের উৎপাদন হ্রাস পায়।

ইউনিভার্সিটি অফ টেক্সাস এর সেলুলার বায়োলজি এর প্রফেসর রাসেল যে রেইটর এর মতে নারীদের গর্ভধারণ প্রক্রিয়া সচল ও স্বাভাবিক রাখার জন্য অন্ধকার পরিবেশ জরুরী। ভ্রুনের সুরক্ষা ও ও বেড়ে ওঠার জন্যও অন্ধকার পরিবেশ থাকা জরুরী বলে তিনি মনে করেন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

মস্তিষ্কের পাইনিয়াল গ্ল্যান্ড অন্ধকারে মেলাটনিন হরমোনে সারা জাগায় যা গর্ভধারণের প্রক্রিয়ায় অত্যন্ত জরুরি। তাই যারা গর্ভধারণ করতে ইচ্ছুক তাদের রাতে বাতি নিভিয়ে প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময় ঘুমানো উচিত। রেইটার এর মতে মেলাটনিনের আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট প্রোপার্টিস যা ডিম্বাণুকে ফ্রি র্যািডিক্যাল ডেমেজ থেকে রক্ষা করে।

গবেষক এর মতে যেসব নারীরা গর্ভধারণ করতে চাইছেন কিংবা গর্ভধারণে জটিলতায় ভুগছেন তাদের প্রতিদিন রাতে বাতি নিভিয়ে একেবারে অন্ধকার পরিবেশে কমপক্ষে ৮ ঘন্টা ঘুমানো উচিত।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply