,
আপডেট

যে ভুলগুলোর কারণে আমাদের শরীর সঠিক বিশ্রামটি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে

শরীর সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখার জন্য বিশ্রাম প্রয়োজন। কিন্তু একবার ভেবে দেখুন সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রমের পরে কি শরীরকে আমরা সঠিক বিশ্রামটি দিয়ে থাকি? প্রতিদিন এমন কিছু ভুল করে থাকি যার দরুন আমাদের শরীর সঠিক বিশ্রাম থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আসুন জেনে নিই কোন ধরনের ভুলগুলোর কারণে আমাদের শরীর বিশ্রামের অভাবে দিনদিন অসুস্থ হয়ে পড়ছে।

১. রাত জেগে ফোনে কথা বলা বা ইন্টারনেট ঘাঁটা :

সারাদিন দীর্ঘ পরিশ্রমের পর আমাদের উচিৎ রাতে খুব ভালো একটি ঘুম দেয়া। যার ফলে আমাদের সারাদিনের ক্লান্তি দূর হয় এবং ব্রেনেরও কিছুটা বিশ্রাম হয়।

কিন্তু দেখা যায় যে আমরা অনেকেই স্বাভাবিক বিশ্রাম না নিয়ে রাত জেগে ফোনে কথা বলে থাকি বা ফোনে ইন্টারনেটে বা ফেসবুকে সময় অতিবাহিত করি। এই ভুল কাজটি আমাদের শরীরের সঠিক বিশ্রামটি নষ্ট করে দেয় এবং ধীরে ধীরে অসুস্থ করে তোলে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

২. নীরবতার সুযোগটুকুকে কাজে না লাগানো :

রাতের বেলা সবকিছুই নিস্তব্ধ হয়ে যায়। এই নিস্তব্ধতাকে কাজে না লাগিয়ে অনেকেই বাজে ধরনের চিন্তা করে থাকেন। অকারণে বাজে চিন্তা শরীরের ক্ষতিসাধন করে থাকে। এর ফলেও শরীর সঠিক বিশ্রামটুকু থেকে বঞ্চিত হয়।

৩. রাত জেগে গল্পের বই পড়া :

অনেকেরই রাত জেগে বই পড়ার অভ্যাস রয়েছে। বই পড়া এক ধরনের নেশা বলা যেতে পারে। এর ফলে যতক্ষণ না বইটি শেষ হচ্ছে ততক্ষণ তিনি বই পড়তেই থাকেন। এর ফলেও শরীরের সঠিক বিশ্রাম একেবারে নষ্ট হয়ে যায়। শরীর দিনদিন অসুস্থ হয়ে পড়ে।

৪. রাত জেগে মুভি দেখা :

মুভি দেখাটাও এক ধরনের নেশা। স্বাভাবিকভাবে কিছুটা প্রশান্তির জন্য মুভি দেখলে সেটি শরীরে তেমন কোনো বাজে প্রভাব ফেলে না। কিন্তু অনেকেই রাত জেগে মুভি দেখতে পছন্দ করেন। এতে করে রাতের সুস্থ স্বাভাবিক ঘুমটি নষ্ট হয়ে যায়। ফলে সারাদিনের ক্লান্তি দূর করার প্রয়োজনীয় ঘুমটি থেকে শরীর বঞ্চিত হয়। এতে করে শরীর আস্তে আস্তে অসুস্থ হয়ে পড়ে।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply