,
আপডেট

দুশ্চিন্তা দূর করার ৫টি দারুণ কার্যকরী উপায়

দুশ্চিন্তা মাথায় আনেন না এমন কাউকেই খুঁজে পাওয়া সম্ভব নয়। কমবেশি সবাই দুশ্চিন্তার সমস্যায় ভোগেন। কিন্তু অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা আমাদের জন্য অনেক বেশি ক্ষতিকর। যতোটা সম্ভব দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকার চেষ্টা সকলেরই কর উচিৎ।

সমস্যা হলো, দুশ্চিন্তা এমন একটি জিনিস যা মানুষ ইচ্ছে করে করেন না। আপনাআপনিই কোনো না কোনো কারণে আমরা দুশ্চিন্তাগ্রস্থ হয়ে পরি। হ্যাঁ, দুশ্চিন্তা একেবারে দূর করা হয়তো সম্ভব নয় কিন্তু নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব। এবং নিয়ন্ত্রণে থাকলে আপনি খুব সহজেই দুশ্চিন্তা থেকে নিজেকে দূরে রাখতে পারবেন। আসুন, জেনে নেই ৫ টি কার্যকরী পদ্ধতি।

গভীর ভাবে শ্বাস নিন

খুব বেশি মাত্রায় দুশ্চিন্তা হচ্ছে? কিছুতেই মাথা থেকে বের করতে পারছেন না দুশ্চিন্তা? কোনো কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না? তাহলে একটি কাজ করুন। চোখ বন্ধ করে গভীর ভাবে বুক ভোরে শ্বাস নিন এবং ধীরে ধীরে শ্বাস ছাড়ুন। এতে রক্তে অক্সিজেনের সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে এবং মস্তিষ্কে অক্সিজেন পৌঁছাবে।

অক্সিজেন মস্তিষ্ক এবং মাংসপেশির আড়ষ্টতা দূর করে শিথিল করতে সাহায্য করবে। এভাবে ৫-১০ মিনিট করুন। দুশ্চিন্তা অনেকাংশেই দূর হবে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

মেডিটেশন করুন

খুব বেশি দুশ্চিন্তায় যারা ভোগেন তাদের সহজে দুশ্চিন্তা দূর হতে চায় না। এবং খুব সহজেই তারা দুশ্চিন্তায় পড়ে থাকেন। এই সমস্যার একমাত্র সমাধান মেডিটেশন। সকালে শান্ত পরিবেশে ১০-১৫ মিনিট মেডিটেশন করেন নিলে সারাদিনের দুশ্চিন্তা কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবেন। এছাড়াও খুব বেশি দুশ্চিন্তা থেকে মুক্তির জন্য মেডিটশনে বসে যান।

মনোযোগ অন্যদিকে সরিয়ে নিন

যখন দুশ্চিন্তা হয় তখন মানুষ শুধুমাত্র নিজের দুশ্চিন্তাতেই মগ্ন থাকে এতে দুশ্চিন্তা আরও বেড়ে যায়। তাই দুশ্চিন্তা থেকে দূরে থাকতে দুশ্চিন্তার কারণ থেকে মনোযোগ সরিয়ে নেয়া ভালো। মানসিক স্বস্তির জন্য অন্য কোনো কিছুতে মনোনিবেশ করুন। দুশ্চিন্তা কমে যাবে।

নিজেকে উপহার দিন একটুকরো চকলেট

সেরিটেনিন নামক হরমোনটি মস্তিষ্কে উৎপাদন করার জন্য একটুকরো হলেও চকলেট খান। সেরিটেনিন মস্তিষ্কে ভালোলাগার অনুভূতির সৃষ্টি করে এবং মস্তিষ্ক শিথিলে কাজ করে। দুশ্চিন্তা দূর করতে চাইলে একটুকরো চকলেট মুখে পুড়ে নিন।

শারীরিক পরিশ্রম করুন

শারীরিক ব্যায়াম এবং পরিশ্রম আমাদের দেহে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে। মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি পেলে মস্তিষ্ক সতেজ হয় এবং আপনি যে কাজটি করছেন তার দিকে মনোনিবেশে সহায়তা করে। এতে আপনার মনোযোগ শুধুমাত্র সেই পরিশ্রমের কাজের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। এবং আপনি দুশ্চিন্তা করবেন না।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply