,
আপডেট

অতিরিক্ত প্রোটিন গ্রহণ ধূমপানের মতই ক্ষতিকর!

সম্প্রতি একটি বৈজ্ঞানিক গবেষণায় জানা গেছে যে অতিরিক্ত প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া ধূমপান করার মতই ক্ষতিকর। বিশেষ করে মধ্যবয়সীদের জন্য বিষয়টি বেশি প্রযোজ্য।

গবেষণায় প্রায় ১০০০ জনের উপর ২০ বছর ধরে জরিপ চালানো হয়েছে। দেখা গিয়েছে যে যাদের খাদ্য তালিকায় প্রচুর পরিমাণে প্রানিজ প্রোটিনের উপস্থিতি আছে তাদের ক্যান্সারের হার অন্যদের চাইতে ৪ গুণ বেশি।

অতিরিক্ত প্রাণিজ প্রোটিন খাওয়ার ফলে বৃদ্ধি পাওয়া ক্যান্সারের এই ঝুকির সঙ্গে বিজ্ঞানীরা দিনে ২০ টি সিগারেট খাওয়ার সঙ্গে তুলনা করেছেন।

এর আগে গবেষকরা লাল মাংসের সাথে ক্যান্সারের সম্পর্ক আছে বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু প্রথমবারের মত গবেষকরা অতিরিক্ত প্রাণিজ প্রোটিনের সঙ্গে ক্যান্সারের সম্পর্ক বিষয়ক গবেষণার ফলাফল জানিয়েছেন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

ওয়ার্ড হেলথ অর্গানাইজেশন লাল মাংস ও অতিরিক্ত চিনির ব্যাপারে জনসাধারণকে সাবধান করে দিয়েছে অনেক বার। কিন্তু অতিরিক্ত প্রোটিন জাতীয় খাবার খাওয়ার ব্যাপারে তাঁরা কিছু জানায়নি কখনো।

গবেষকরা জানিয়েছেন যে যারা অতিরিক্ত প্রোটিনযুক্ত খাবার নিয়মিত খায় তাদের অকালে মৃত্যুর ঝুকি যারা কম প্রোটিন খায় তাদের তুলনায় প্রায় ৭৪% বেশি। বিশেষ করে মধ্য বয়সীদের জন্য অতিরিক্ত প্রোটিন জাতীয় খাবার খাওয়া খুবই ঝুকিপূর্ণ। গবেষকরা আরো উল্ল্যেখ করেছেন যে অতিরিক্ত প্রোটিন জাতীয় খাবার খেলে ডায়াবেটিসের ঝুকিও বাড়ে।

ইউনিভার্সিটি অফ সাউথার্ন ক্যালিফোর্নিয়ায় হওয়া এই গবেষণার একজন গবেষক ডঃ ভালটার লঙ্গ বলেন অতিরিক্ত প্রানীজ প্রোটিন খাওয়া আর সিগারেট খাওয়া মোটামুটি একই রকম ক্ষতিকর। তাঁরা মধ্য বয়সীদেরকে প্রতিদিন ০.৮ গ্রাম প্রোটিন খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এর চাইতে বেশি প্রোটিন শরীরের জন্য ক্ষতিকর বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply