,
আপডেট

গান শুনুন, হৃৎপিণ্ড ভালো রাখুন!

গান ভালোবাসেন না এমন মানুষ আছে? প্রায় সব মানুষই তো নিজের পছন্দ অনুযায়ী গান শুনতে ভালোবাসেন। যারা গান ভালোবাসেন তাদের জন্য সুখবর হলো গান শুনলে হৃৎপিণ্ড ভালো থাকে। সম্প্রতি একটি গবেষণায় এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে।

ইউরোপে একটি গবেষণায় ৭৪ জন হৃৎপিণ্ডের সমস্যায় ভুগছেন এমন রোগীদের উপর গবেষণা করে দেখা যায় যে গান কিংবা মিউজিক হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো করে এবং যারা হৃৎপিণ্ডের সমস্যায় ভুগছেন তাদের সমস্যা কমাতে সহায়তা করে।

গবেষণার জন্য রোগীদেরকে তিন দলে ভাগ করা হয়েছিলো। প্রথম দলকে ৩ সপ্তাহের ব্যায়ামের ক্লাস করতে বলা হয়েছিলো। দ্বিতীয় দলকেও একই ব্যায়ামের ক্লাস করতেই দেয়া হয়েছিলো।

শুধু তাদের কে প্রতিদিন ৩০ মিনিট করে তাদের পছন্দের গান শুনতে বলা হয়েছিলো। তৃতীয় দলকে শুধু মাত্র গান শুনতে বলা হয়েছিলো। কোনো রকমের ব্যায়াম করতে দেয়া হয়নি তাদেরকে।

তিন সপ্তাহ পর দেখা গেলো যে প্রথম দলের রোগীরা, যারা শুধু মাত্র ব্যায়াম করেছেন তাঁরা ব্যায়ামের দক্ষতা ২৯% বাড়াতে পেরেছেন। কিন্তু দ্বিতীয় দলের রোগীরা অর্থাৎ যে দলটি ব্যায়ামের পাশাপাশি গানও শুনেছেন তাঁরা ৩৯% বেশি ব্যায়াম করতে পারছেন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

তৃতীয় দলের রোগীরা যারা কোনো প্রকারের কোনো ব্যায়ামই করেন নি কেবল মাত্র গান শুনেছে তারাও ১৯% বেশি ব্যায়াম করার ক্ষমতা বাড়িয়েছেন।

সারবিয়ার ইউনিভার্সিটি অফ নিস এর কার্ডিওলজিস্ট প্রফেসর ডেলিজানিন লিক এর মতে যখন আমরা আমাদের পছন্দের কোনো গান শুনি তখন মস্তিষ্ক থেকে এনডরফিন নিঃসরণ হয়।

এনডরফিন রক্তনালী ভালো রাখে। কোনো কথা ছাড়া গান অর্থাৎ শুধু মিউজিক হৃৎপিণ্ডের উপর আরো বেশি ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

হৃৎপিণ্ড ভালো রাখার নির্দিষ্ট কোনো গান নেই। রোগীরা নিজেদের পছন্দের গান শুনলেই হৃৎপিণ্ড ভালো থাকে। তবে এক্ষেত্রে মন বিষণ্ণ করে দেয় এমন গান না শুনে, যে সব গান মন ভালো করে দেয় সেসব গান শোনা উচিত।

তবে অন্যান্য বেশ কিছু গবেষণায় জানা গেছে যে হেভি মেটাল গানের চাইতে হালকা ধরণের মিউজিক বা ধীর লয়ের গান হৃৎপিণ্ডের জন্য ভালো।

তাহলে দেরী না করে গান শোনা শুরু করে দিন। পছন্দের গুলো হালকা ধরণের নিয়মিত শুনুন। বিশেষ করে যেই গান গুলো আপনার মন ভালো করে দেয় সেগুলো বেশি করে শুনুন।

বিষন্নতাকে দূরে ঠেলে দিয়ে আনন্দে থাকার চেষ্টা। তাহলে হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্য ভালো থাকবে সব সময়।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply