,
আপডেট

কফ সমস্যায় ঘরোয়া প্রতিকার

কফ হলো গলার অস্বস্তিকর পিচ্ছিল পদার্থ। গলার গ্ল্যান্ডগুলো দিনে প্রায় এক থেকে দুই লিটার কফ তৈরি করে। কফ হলো আমাদের শ্বাসনালীর রস। শ্বাসনালীকে ভিজিয়ে রাখা কফের কাজ।

শ্বাসনালী কোনো কারণে প্রয়োজনের অতিরিক্ত কফ তৈরী করলে আমরা গলায় অস্বস্তিকর কফের অনুভুতি পাই। কফ হল কাশি সৃষ্টির জন্য অন্যতম একটি কারণ। আসুন এবার জেনে নেয়া যাক কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে কফ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

জোরে কাশি দিন:

যখনই গলায় কফ আসবে জোড়ে গলা খাকর দিয়ে কফ বের করে ফেলে দিন। গলা খাকরে কাজ না হলে জোরে জোরে কাশি দিন। জোরে কাশি দিলে শ্বাসনালীর গায়ের থেকে কফ আলগা হয়ে যায়।

ফলে কফ বের হয়ে আসে। কফ গিলে ফেলা উচিত না। বার বার কফ ফেলে দিলে কফের উপদ্রব কমে আসবে।

গরম পানির গড়গড়া:

৮ আউন্স হালকা গরম পানিতে ১ চা চামচ লবণ মিশিয়ে গড়গড়া করুন। দিনে অন্তত ৪ বার গড়গড়া করলে কফ জমতে পারবে না এবং সহজে বের হয়ে আসবে।

গরম পানির ভাপ নিন:

ফুটন্ত গরম পানিতে মেন্থল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। চুলা থেকে পানি নামিয়ে নিন। এবার মাথার উপর একটি টাওয়েল দিয়ে বড় করে দম নিয়ে গরম পানির ভাপ নিন। এভাবে অন্তত ১০ মিনিট করে দিনে ২ বার করুন। গরম পানির ভাপ নিলে বুকে কফ জমতে পারে না এবং সহজেই বের হয়ে আসে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

প্রচুর তরল খাবার খান:

কফের সমস্যায় বেশি করে তরল খাবার খেলে উপকার পাওয়া যায়। সারাদিন প্রচুর পানি ও বিভিন্ন রকম জুস খান। তবে খুব ঠান্ডা পানি বা জুস খাওয়া উচিত না। এছাড়াও যে সব তরল খাবার খেতে পারেন সেগুলো হলো-

  • চায়ের লিকারে লেবুর রস ও মধু দিয়ে খান। লেবুর রস ও মধু কফ দূর করার ক্ষেত্রে অবদান রাখে।
  • মুরগী ও সবজির স্যুপ খান। তবে ঘন স্যুপের চাইলে পাতলা ও স্বচ্ছ স্যুপ খাওয়া ভালো।
  • হালকা গরম পানিতে লবণ দিয়ে পান করুন।
  • তুলসী পাতার চা পান করুন।
  • হলুদ গুড়া, আদা চূর্ণ এক চা চামচ গরম দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খেলে কফ নিরাময় হয়।

ঝাল ও ঝাঁঝালো খাবার খান:

আদা কুচি করে রাখুন। দিনের মধ্যে যতবার সম্ভব আদা চিবিয়ে খেয়ে ফেলুন। এছাড়াও ঝাল খাবার খেলেও কফ বের হয়ে যেতে সুবিধা হয়।

কফ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ধুমপান ত্যাগ করুন। বাতাসে অতিরিক্ত ধুলাবালি থাকলে মাস্ক ব্যবহার করুন। রাস্তাঘাটে কফ না ফেলে বেসিনে বা কমোডে ফেলুন। কারণ কফ থেকে বায়ুমন্ডলে বিভিন্ন রকম রোগ জীবানু ছড়াতে পারে

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply