,
আপডেট

লেন্স ব্যবহারের সাবধানতা

নিজেকে সাজিয়ে রাখার জন্য কত পন্থাই না অবলম্বন করে সৌন্দর্য পিপাসুরা। চুল থেকে শুরু করে পায়ের নখ পর্যন্ত তাদের বাহারি পরিচর্যা থাকে। আধুনিকতার ছোঁয়ায় বর্তমান অনেকেই চোখকে আকর্ষণীয় করার জন্য ব্যবহার করছেন কন্টাক্ট লেন্স।

যদিও শুরুতে চোখের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হতো এই লেন্স। কিন্তু বর্তমানে শুধুমাত্র চশমার বিকল্প হিসেবে নয়, স্টাইল ও ফ্যাশনের জন্য অনেকেই পরে থাকেন কন্টাক্ট লেন্স।

কন্টাক্ট লেন্স এমন একটি পাতলা প্লাস্টিক লেন্স যা চোখের মণির সাথে আটকে থাকে। এটি একটি স্বচ্ছ কাচের মত এবং আমাদের চোখের কর্নিয়াকে আবৃত করে রাখে।যাদের চোখে পাওয়ার এর সমস্যা আর চশমা ব্যবহার করতে চাননা তারা ডাক্তার এর পরামর্শঅনুযায়ী কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারেন।

চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায় কন্টাক্ট লেন্স ব্যাবহারের পাশাপাশি এর যত্ননেয়া অত্যন্ত জরুরি। কারন সামান্য অসাবধনতা জন্য কন্টাক্ট লেন্স থেকেও হতে পারে দৃষ্টিহানির মত কঠিন সমস্যা। আসুন জেনে নেই কিছুতথ্য যা থেকে আপনি নিজেকে দূর রাখতে পারেন কন্টাক্ট লেন্স ঘটিত সমস্যাথেকে।

লেন্স পরা বা খোলার সময় হাত পরিষ্কার করে নেয়া:

অনেকে সময় স্বল্পতার জন্য অথবা আলসেমি করে লেন্স পরা বা খোলার সময় হাতভালো ভাবে ধুয়ে নিতে চান না। কিন্তু জেনে রাখা ভাল যে আমরা দিনে যা যা করে থাকি তাতে আমাদের হাতে অনেক জীবাণু থাকে। ভালোভাবে হাত না ধোয়া হলে এইজীবাণু হাতের মাধ্যমে লেন্সে চলে যায় এবং পরবর্তীতে চোখের সমস্যা তৈরি করে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

সুতরাং লেন্স ধরার আগে ভালোভাবে হাত ধুয়ে নেয়া প্রয়োজন। যারা লেন্স ব্যবহার করেন তারা প্রত্যেকেই লেন্সের সল্যুশন ব্যবহার করেন। চোখ থেকে লেন্স খুলে একটি নির্দিষ্ট বাক্সে সল্যুশন-এ এটি ডুবিয়ে রাখা হয়। অনেকে জেনেও একই সল্যুশন ২/৩ বার ব্যবহার করে থাকেন সময়ের অভাব অথবা সল্যুশন কম ব্যবহারের জন্য।

এটি কিন্তু খুবই বিপজ্জনক। কারন একই সল্যুশনব্যবহার লেন্সের ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাস ধ্বংস করতে পারে না। তাই লেন্সব্যবহার এর ক্ষেত্রে প্রতিবার নতুনভাবে সল্যুশন নেয়া জরুরি। লেন্সে সরাসরি পানি দেয়া উচিত নয়। পানিতে অনেক মাইক্রো অরগানিজম থাকে যা পরবর্তীতে চোখের ক্ষতি করে থাকে।

অনেক সময় ধরে লেন্স পরে থাকা অথবা অনেক সময় ধরে লেন্স পরে কম্পিউটার বা টিভি দেখা চোখের ক্ষতির কারন হতে পারে। তাই অনেকক্ষণ একটানা না তাকিয়ে একটুপর পর পলক ফেলুন এতে করে লেন্স শুকিয়ে যাওয়া থেকে রেহাই পাবেন। ১০ সেকেন্ডচোখ বন্ধ করে রাখলেও আরাম পাবেন।

প্রতিটি লেন্সের মেয়াদ দেয়া থাকে। কিছু কিছু লেন্স ৩ মাস পরার উপযোগী আবার কিছু কিছু লেন্স ৬ মাস বা ১ বছর পরার উপযোগী করে তৈরি করা হয়। মেয়াদশেষ হয়ে যাওয়ার পর লেন্স ব্যবহার অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। তাই মেয়াদ শেষের সাথেসাথে লেন্স ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী বদলে ফেলুন।

এছাড়া চোখে পরতে চোখজ্বালা পোড়া করলে অথবা ঘনঘন চোখ শুকিয়ে গেলেও লেন্স বদলে ফেলুন। যারাডাক্তারের পরামর্শ না নিয়ে শুধু আধুনিকতা প্রদর্শনের জন্য লেন্স পরেথাকেন তারা বুঝে ব্যবহার করুন।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply