,
আপডেট

সুস্থ ও সতেজ পরিবারের জন্য

পরিবার মানেই একটা বন্ধন। আর এই বন্ধনটি যত বেশি মজবুত হবে, ততই জীবনে মিলবে শান্তি ও সুখ। কিন্তু বিভিন্ন কারণে পরিবারের শান্তি নষ্ট হয়ে যায়, পরিবার মাঝে পরিবেশটি হয়ে ওঠে দূষিত ও অস্বাস্থ্যকর।

আর এর পেছনে সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপনের অভ্যাস। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে পরিবারের সদস্যরা হয়ে পড়েন শারীরিক ও মানসিকভাবে অসুস্থ। তাই কয়েকটি উপায়ে আপনার পরিবারকে করে তুলুন সুস্থ ও সতেজ।

স্বাস্থ্যকর খাবার :

স্বাস্থ্যকর খাবার একটি দেহকে সুস্থ রাখে। কোনো ধরনের রোগ জীবাণু সেই দেহকে আক্রমণ করতে পারে না। এর ফলে দৈহিক এবং মানসিকভাবে শান্তি পেয়ে থাকেণ একজন মানুষ।

আপনার পরিবারের সদস্যদের এই স্বাস্থ্যকর খাবারের সরবরাহ করুন। প্রতিদিন প্রোটিন এবং ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার, পাশাপাশি দুপুরে শর্করা বা আমিষ জাতীয় খাবার পরিবেশন করুন। শরীরের সব ধরনের চাহিদা পূরণে স্বাস্থ্যকর খাবার দিন এবং পরিবারের সবাইকে সুস্থ রাখুন।

বাচ্চাদের নতুন ধরনের খাবারে অভ্যস্ত করে তুলুন :

বাচ্চারা সাধারণত খাবার একেবারেই খেতে চায় না। বয়স বাড়ার সাথে সাথে তারা খাবার নিয়ে নানা ধরনের ঝামেলা তৈরি করে। ফলে তাদের দেহে পুষ্টির পরিমাণ কমে আসতে থাকে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

এমতাবস্থায় বাচ্চাকে সুস্থ স্বাভাবিক রাখতে তাদের নতুন ধরনের কিছু পুষ্টিকর খাবার খেতে দিন। যেকোনো নতুন রেসিপি তাদের সামনে মজাদারভাবে পরিবেশন করুন। এতে তারা খাবারটিতে মজাও পাবে পাশাপাশি শরীরের পুষ্টি পূরণ হয়ে তারা সুস্থও থাকবে।

একসাথে বসে খাবার খান :

পরিবারের সুস্থতা এবং শান্তির জন্য পরিবারের প্রতিটি সমস্যদের সাথে আন্তরিক যোগাযোগটা থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। তাই সবসময় একসাথে থাকার চেষ্টা করুন।

একসাথে ডাইনিং টেবিলে বসে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে করে আত্মিক যোগাযোগটা আরও অনেক বেশি দৃঢ় হয় এবং সংসারে শান্তি আসে।

শারীরিক ব্যায়ামের অভ্যাস :

ব্যায়াম একটি দেহকে ফিট আর সুস্থ রাখে। তাই পরিবারের সুস্থতার জন্য পরিবারেরে ছোট বড় সবারই শারীরিক ব্যায়ামের একটি অভ্যাস গড়ে তুলুন। একটি নির্দিষ্ট সময় ঠিক করুন যে সময়টিতে সবাই একসাথে এই শারীরিক ব্যায়ামে অংশ নেবেন।

ঘুমানোর নির্দিষ্ট সময় নির্বাচন :

শারীরিকভাবে সুস্থ থাকার একটি বড় উপায় হল ঘুম। সঠিক নিয়মের ঘুম শরীরের ক্লান্তি দূর করে। তাছাড়া পর্যাপ্ত পরিমাণের ঘুম শরীরের যাবতীয় অসুস্থতা দূর করে।

এজন্য পরিবারের সবার জন্যই ঘুমানোর একটি নির্দিষ্ট সময় নির্বাচন করুন। বিশেষ করে বাচ্চাদের ঘুমানোর সময়টা নির্দিষ্ট করে সেই সময়ের মাঝেই তাদের ঘুমিয়ে দিন। এতে করে পরিবারের স্বাস্থ্য রক্ষা পাবে এবং শান্তি আসবে।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply