,
আপডেট

যে ৭ টি কাজ প্রতিরোধ করবে মরণব্যাধি কোলন ক্যান্সার

প্রতিবছর যত প্রকারের ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হয় তার মধ্যে কোলন ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা বেশি। মহিলাদের তুলনায় পুরুষেরা কোলন ক্যান্সারে বেশি আক্রান্ত হয়ে থাকেন। কিন্তু গবেষণায় দেখা গিয়েছে এবং ডাক্তারদের মতে সঠিক খাদ্যাভ্যাস এবং জীবন যাপনে কিছুটা পরিবর্তনের মাধ্যমেই কোলন ক্যান্সার হওয়ার প্রায় ৪৫% ঝুঁকি কমে যায়।

তাই নিজেদের সুস্থতায় সতর্ক থাকা উচিত নিজেদেরকেই।

আজই বন্ধ করে দিন ধূমপান

ধূমপানের ফলে ফুসফুসের ক্যান্সার, হার্ট অ্যাটাকের পাশাপাশি কোলন ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে। ৪০ বছরের নিম্ন বয়সী ধূমপায়ীদের প্রায় ১৭% ঝুঁকি রয়ে যায় কোলন ক্যান্সারের এবং ৪০ বছরের ঊর্ধ্বে তা বেড়ে হয় ৩০-৩৫%।

লাল মাংস একেবারেই খাবেন না

গবেষণায় দেখা যায় লাল মাংস কোলন ক্যান্সারের জন্য অনেকাংশে দায়ী বিশেষ করে যদি তা নিয়মিত খাওয়া হয়। তাই লাল মাংস খাওয়া বাদ দিন। যদি একেবারেই বাদ দিতে না পারেন তাহলে পরিমাণ কমিয়ে দিন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

 পেটের মেদ কমানোর চেষ্টা করুন

গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে যাদের ওজন স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি বিশেষ করে যাদের পেটে মেদ জমার সমস্যা রয়েছে তাদের খুব সহজে এই কোলন ক্যান্সারে আক্রান্তের ঝুঁকি দেখা যায়। তাই যতোটা সম্ভব ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখুন এবং পেটের মেদ কমানোর চেষ্টা করুন।

নিয়মিত ব্যায়াম

স্বাভাবিক নিয়মে যদি প্রতিদিন ব্যায়ামের অভ্যাস তৈরি করেন তাহলে দেহে মেদ জমার সুযোগ পাবে না। এতে করে কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি আপনাআপনিই অনেক কমে আসবে। সুতরাং নিয়মিত ব্যায়ামকে অবহেলা নয়।

প্রতিদিন সবুজ শাকসবজি ও ফলমূল

প্রতিদিন খাদ্য তালিকায় রাখুন প্রচুর শাকসবজি এবং ফল। যেসকল সবজি কাঁচা খাওয়া যায় তা কাঁচাই খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে করে দেহে বাড়তি ফ্যাট জমবে না এবং পাশাপাশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে এবং সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হতে পারবেন যা প্রতিরোধ করবে কোলন ক্যান্সার।

 খাবারে রসুনের ব্যবহার

গবেষণায় দেখা যায় রসুনের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট উপাদান কোলন ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। সুতরাং খাবারে রসুনের পরিমাণ একটু বাড়িয়ে দিন।

নিয়মিত গ্রিন টি

গবেষণায় দেখা যায় যারা নিয়মিত গ্রিন টি পান করেন কফি বা সাধারণ চায়ের তুলনায় তারা কোলন ক্যান্সারে অনেক কম আক্রান্তের ঝুঁকিতে থাকেন। তাই কফি বা চা না পান করে গ্রিন টি পানের অভ্যাস করুন।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply