,
আপডেট

ত্বকে বলিরেখা: কারণ ও প্রতিকার।

বয়স হলে ত্বক হারায় স্থিতিস্থাপকতা, নমনীয়তা, ঔজ্জ্বল্য। ঝুলে পড়ে ত্বক, তাতে দেখা দেয় ভাঁজ – একেই বলে রিঙ্কল বা বলিরেখা। ত্বকের বিভিন্ন স্তরের বিভিন্ন গ্রন্থির তৈলাক্ত নিঃসরণ এ সময় কমে আসে। তাই ত্বক হারায় তার উজ্জ্বলতা এবং নমনীয়তা। ত্বকের কোলাজেন ও ইলাস্টিন প্রোটিন ফাইবার যা ধরে রাখে ত্বকের স্থিতিস্থাপকতা। বয়স বেড়ে গেলে এই স্থিতিস্থাপকতা একেবারেই কমে গিয়ে ত্বক ঝুলে পড়ে।

এছাড়া বিভিন্ন হরমোন, যেগুলো ত্বককোষের নানা উপকারে লাগে সেগুলোও কমে যাওয়ার ফলে ত্বকের ঠিক নিচে চর্বির সঙ্গে যে একটা টানটান ভাব থাকে তাতেও দেখা দেয় অভাব। পুষ্টির অভাবে এবং দীর্ঘদিন দীর্ঘ সময় ধরে রোদে পুড়লে অকালে ত্বকের কোলাজেন ও ইলাস্টিন ফাইবার ভেঙে ত্বকে বয়সের ছাপ পড়তে পারে। কোনো বয়সে কতটা বলিরেখা পড়বে তা নির্ভর করে নানা বিষয়ের ওপর।

কারণ

জিনগত কারণ: রোগা ও কালো মানুষদের বলিরেখা কম হয়।

মুখের মাংসপেশী: যারা অতিরিক্ত হাসেন তাদের বলিরেখা আগে দেখা যায়। অতিরিক্ত মাসাজ এবং মুখের ব্যায়াম থেকেও এটা হতে পারে।

ওজন হ্রাস: ডায়েটিং করে বা অসুখের ফলে কারো ওজন কমে গেলে, শরীরে ফ্যাটের পরিমাণও কমে যায়। ফলে দেখা দেয় বলিরেখা।

অতিরিক্ত ধূমপান: অতিরিক্ত ধূমপান যারা করেন তাদের দেহের অন্যান্য অংশের সাথে মুখেও রক্তসঞ্চালন কমে যায়। ত্বক হারায় তার স্বাভাবিক জৌলুস, দেখা দিতে পারে বলিরেখা।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

উন্মুক্ত দেহাংশ: অতিরিক্ত তাপ, ঠাণ্ডা এবং বাতাসের সংস্পর্শে দেহের যেসব অংশ বেশি আসে সেসব জায়গায় বলিরেখা বেশি পড়ে। এ কারণেই মুখ, হাত-পায়ের ত্বক যত তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যায়, পিঠ বা কোমরে তা হয় না।

স্থিতিস্থাপকতা কমলে: বার বার বেশি ক্ষারীয় সাবানে হাত ধুলে, বিশেষ করে গরম পানিতে, হাতের ত্বকের কোলাজেন ফাইবার অকালে ছিঁড়ে যায়, ত্বক হারায় তার স্থিতিস্থাপকতা বা টানটান ভাব।

সাধারণত চার বা পাঁচের ঘরে পা দেয়ার পর ত্বকের নানা পরিবর্তন হতে শুরু করে। দেহের যেসব জায়গার ত্বক খুব পাতলা, যেমন চোখের পাতা, গলা, চিবুক – এসব জায়গায় বলিরেখা আগে পড়ে। ত্বকের নিচের চর্বি কমে যাওয়ার ফলে ত্বক ঝুলে পড়ে।

কী করবেন

বলিরেখা সাময়িকভাবে আটকানো যায় নানা ধরনের রিঙ্কল ক্রিম মুখে এবং দেহে ব্যবহার করে, ফেসিয়াল করে, আকুপাংচার এবং লেজার ট্রিটমেন্ট করে।

  • – স্থায়ী সমাধান মেলে কসমেটিক সার্জারি করে এবং ঝুলে যাওয়া ত্বকের তলায় জাইডার্ম কোলাজেন ইমপ্ল্যান্ট করে। ফেস লিফট কসমেটিক সার্জারি প্লাস্টিক সার্জনেরা গাল, কপাল, চোখের তলা এবং গলার ঝুলে পড়া ত্বককে ঠিকঠাক করে দিচ্ছেন। চিত্রতারকারা তো বটেই সাধারণ মানুষরাও আজকাল বয়স লুকাতে প্লাস্টিক সার্জনের শরণাপন্ন হচ্ছেন।
  • – যারা রোদে ঘোরাঘুরি করেন তারা অবশ্য সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। নানা ভেষজ উপাদানও বলিরেখা বিলম্বিত করতে সাহায্য করে। প্রাকৃতিক জিনিস ব্যবহার করুন।
বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply