,
আপডেট

আয়ুর্বেদ নিয়ে সাতটি তথ্য আপনার জানা প্রয়োজন

বহু মানুষই আয়ুর্বেদের কথা শুনেছেন। পশ্চিমারাও সম্প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেছে এর প্রতি। তবে সামান্য জানলেও এ বিষয়টির ওপর সঠিক ধারণা খুব কম মানুষেরই আছে। আর এ সুযোগে তৈরি হয় বিভ্রান্তি। যার সুযোগ নিতে পারে বিভিন্ন পক্ষ। এ কারণে বিভ্রান্তি দূর করার জন্যও আয়ুর্বেদ সম্পর্কে জেনে নেওয়া প্রয়োজন।

১. আয়ুর্বেদ কী
আয়ুর্বেদ সম্পর্কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি আপনার জানা প্রয়োজন তা হলো, আয়ুর্বেদ কী? না, এটি কোনো ধর্ম নয়। এটি প্রাচীন একটি চিকিৎসা পদ্ধতি। যার মূল ধারণা শারীরিক ব্যবস্থার ভারসাম্য আনা, খাবারের সঠিক ব্যবহার, ভেষজ চিকিৎসা ও যোগাসন। প্রাচীন বিজ্ঞানের ভিত্তিতে শরীরের ভারসাম্য আনাই এর মূল বিষয়।

২. এর মূলে রয়েছে ‘অথর্ব বেদ’
বর্তমানে বিশ্বের নানা স্থানে আয়ুর্বেদ নিয়ে আগ্রহী মানুষের সংখ্যা বেড়ে গেলেও এর মূল কিন্তু রয়েছে ভারতীয় উপমহাদেশেই। পাঁচ থেকে ছয় হাজার বছর আগে এর উদ্ভব বলে জানা যায়। আয়ুবেদের মূল উৎস হিসেবে জানা যায় ‘অথর্ব বেদ’-এর নাম। প্রাচীন হিন্দু শাস্ত্রের চতুর্থ বেদ এ ‘অথর্ব বেদ’। তবে তার মানে এই নয় যে, আয়ুর্বেদ ধর্মীয় কোনো বিষয়। এটি মূলত একটি চিকিৎসাশাস্ত্র।

৩. তিনটি দোসা
আয়ুর্বেদের অন্যতম প্রধান অংশ এর তিন দোসা থিওরি। এ তিনটি দোসা হলো ভাটা, পিটা ও কাপহা। এগুলো আমাদের সবার অংশ। এগুলো বিভিন্ন সংযুক্ত বিষয়ের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। যেমন আগুন, পানি, বাতাস, পৃথিবী ইত্যাদি। তবে প্রত্যেকেরই কোনো একটি প্রধান দোসা থাকে। এর মাধ্যমে জানা যায়, আপনার শরীরের ধরন কেমন।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)

৪. আপনার ওপর এটি কতখানি কার্যকর?
আয়ুর্বেদ কতখানি কার্যকর তা একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। কারণ এর ওপর নির্ভর করছে আপনি বিষয়টি গ্রহণ করবেন কি না। আয়ুর্বেদ আপনাকে জানাবে আপনার দেহের ধরন। এরপর এ শাস্ত্রে আপনি পাবেন কিভাবে শরীরের ধরন অনুযায়ী আপনি চলবেন। এর মধ্যে থাকতে পারে কোন ধরনের খাবার খাওয়া আপনার দেহের জন্য উপযুক্ত। এ ছাড়া আপনার ঘুম, শারীরিক পরিশ্রম, যোগাসন ও শারীরিক নানা বিষয়। এ বিষয়গুলো ঠিকঠাক পালন করলে, আপনার শারীরিক ও মানসিক শান্তি আসতে পারে। বাড়তে পারে আপনার বাস্তব জীবনে সাফল্য।

৫. এটি ব্যক্তিগত
মাত্র তিনটি দোসার ভিত্তিতে বিশ্বের সাতশ’ কোটি মানুষকে শ্রেণীভুক্ত করা সত্যিই আশ্চর্যজনক। কিন্তু এটি গুরুত্বপূর্ণ যে, আয়ুর্বেদ সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত একটি বিষয়। এর কোন অংশটি আপনি মেনে চলবেন, এটি নিয়ে অন্য কেউ মাথা ঘামাবে না। আপনার দেহে নানা মাত্রার ‘দোসা’ থাকতে পারে। আর তার ভিত্তিতে আপনি চলতে পারেন। আপনার শারীরিক ও মানসিক অবস্থার উন্নতির জন্য আপনি এর নানা অংশ কাজে লাগাতে পারেন।

৬. এ জন্য প্রয়োজন বিশেষ মনযোগ
আয়ুর্বেদের জন্য সময় দেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর ধ্যানের পেছনে সময় দেওয়া যুদ্ধের মাত্র অর্ধেক। এ জন্য আপনার কয়েকটি খাবারও কমিয়ে ফেলতে হবে। আর যোগ করতে হবে কিছু খাবার। এর চর্চা করতে হবে নিরবচ্ছিন্নভাবে। কিছু সময়ের জন্য বিশ্রাম নেওয়া যেতে পারে, তবে তা বেশি নয়। অন্যথায় মনযোগ না দিয়ে বিষয়টি করলে তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে।

৭. ক্রমে বাড়ছে আয়ুর্বেদে আগ্রহ
বহু আগেই ইয়োগা সম্পর্কে মানুষের আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এবার সে ধারায় যুক্ত হয়েছে আয়ুর্বেদ। শুধু এ উপমহাদেশেই নয়, পশ্চিমারাও ক্রমে আয়ুর্বেদের ওপর আগ্রহী হয়ে উঠছে। গত কয়েক বছরে এ আগ্রহ সবচেয়ে বেড়েছে। বহু মানুষ আয়ুর্বেদ সম্পর্কে পড়াশোনা করছেন এবং সে অনুযায়ী জীবনযাপনের চেষ্টা করছেন।

তথ্যসূত্রঃ কালের কণ্ঠ

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply