,
আপডেট

কিভাবে নারী ও পুরুষের যৌন সুখের কিছু বহিঃপ্রকাশ করা উচিৎ?

১. গরম + বড় বড় নিশ্বাস, সুখের আহ্ আহ্ শব্দ, ব্যথার অনুভুতি প্রদর্শন: যৌন মিলন একটি খেলা। তাই বিছানায় লজ্জাবোধ রাখবেন না। আপনি চুরি করছেন না। আপনার নৈতিক স্বামীর সাথে সহবাস করছেন। বেশির ভাগ চোখ দেখে মন পড়তে পারেনা। দেখাতে হয় আপনার অনুভুতি গুলো। আপনার আহ্ শব্দ অথবা তাকে খামছে ধরা কিংবা ব্যথার আত্মচিৎকার তার ভিতরের সিংহকে আরো হিংস্র করে তুলবে। আপনার অনুভুতির বহিঃপ্রকাশ তার আত্মবিশ্বাস/অনুপ্রেরনা। আপনি যদি তাকে বুঝাতে পারেন সে আপনার প্রয়োজন মিটাতে পারছে তাহলে একের প্রতি অন্যের ভালবাসা/আন্তরিকতা বোধ জোরালো হবে।

২. কথা বালার আর্ট শিখুন: পুরুষ শুধু কথা থেকে উত্তেজিত হতে পারে। আপনার বডি লেঙ্গুয়েজ তাকে উগ্র করে তুলতে পারে যৌনতার জন্য। মনে রাখবেন স্বামী-স্ত্রী একে অপরের সহযোগী হাত – প্রতিপক্ষ নয়। যদি আপনি সঙ্গীকে প্রতিপক্ষের মত হারাতে চেষ্টা করেন তাহলে নিজের পায়ে কুঠার মারার সমতুল্য ভুল করবেন। মিষ্টি করে কথা বলুন, ঠকবেন না কখনো।

৩. চোখে চোখ রেখে সুখ অবগাহন করুন। মুখের কথার সাথে চোখের চাহনীর সামঞ্জস্যে এক অন্য জগতে নিয়ে যেতে পারেন আপনার সঙ্গীকে। তাই কথা বলুন চোখে চোখ রেখে।

  (এই বিষয়গুলোর উপর ভিডিও বা স্বাস্থ্য বিষয় ভিডিও দেখতে চাইলে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি - ঠিকানা - YouTube.com/HealthBarta)
smile 🙂

৪. লজ্জা দূরে রাখুন। আপনার ভাললাগার স্থান গুলোতে আপনার সঙ্গীকে অবহিত করুন। যেমন জোরে ঠাপ যদি ভাল লাগে তখন বলুন ‘এভাবে কর, এই স্পিড রাখ’। অথবা কোন একটা আসন আপনার কাছে ভাল লাগে তা তার কাছে প্রকাশ করুন। তাকে বলতে পারেন কিভাবে আপনার উত্তেজনা প্রকট হয়। আহ্ উহ্ শব্দ শালীনতার ভিতর থেকে তার কানের কাছে করুন। এক্ষেত্রে দু’টা বিষয় উল্ল্যেখ করতে চাই –

  • রাতের শব্দ অনেক দূর পর্যন্ত যায়। তাই আবদ্ধ ঘর না হলে বেহায়াপনা করবেন না। এতে আপনার সঙ্গী লজ্জায় আগ্রহ হারাতে পারে।
  • তিন বছরের বেশি বয়সের বাচ্চার সামনে যৌন মিলন করবেন না। মিলনকালে তিন বছরের বেশি বয়সের বাচ্ছাকে অন্য রুমে রাখার ব্যবস্থা করুন। কারন তিন বছর বয়স থেকে বাচ্চারা সব কিছু মনে রাখতে পারে। যেসব মা-বাবা সন্তানের সামনে যৌন মিলন করেন সে সন্তান বড় হলে তাদের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ রাখেনা।

৫. পুর্নতৃপ্তি নিরবে অনুভব করবেন না। চরম পুর্নতৃপ্তি আসলে তা আপনার সঙ্গীকে বুঝতে দিন। অন্য সময় শব্দ না করলেও তৃপ্তির সময় তাকে প্রচন্ড শক্তিতে জড়িয়ে ধরুন। তৃপ্তির শব্দ করুন। এ বিষয়গুলি একজন পুরুষের মানসিক শক্তি বুষ্ট করে। স্ত্রীকে সুখ দিতে পারার মত তৃপ্তি পৃথিবীতে দ্বিতীয়টি নেই!!

৬. মানসিক প্রশান্তি প্রকাশ করুন। মিলন শেষে সঙ্গীকে বলুন কতটা ভাল ছিল এ মিলন। বাড়িয়ে বলুন – লস্ হবেনা। এটা পরের বার মিলনের জ্বালানী মনে করতে পারেন। তবে খবরদার খরাপ কথা (এমন করলে মজা পেতাম, এমন করাতে মজা পাইনি ইত্যাদি) মিলন শেষে সাথে সাথে বলবেন না। এতে সে উৎসাহ হারাবে।

বিশেষ মুহূর্তে যৌন দুর্বলতা, শুক্র স্বল্পতা, মিলনে সময় সময় কম, লিঙ্গের শিথিলতা সহ যে কোন যৌন সমস্যায় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিন এবং স্থায়ী চিকিৎসা গ্রহন করুন। যোগাযোগ করুন ডাক্তার নাজমুলঃ 01799 044 229

আপডেট পেতে লাইক দিন আমাদের ফেসবুক পেজে

Leave a Reply